Tips: Precaution for Cold & Cough

post-image

Tips: Precaution for Cold & Cough

সামনে আসছে শীতকাল। ঠান্ডা-সর্দি-কাশির সিজন।

ঠান্ডা-সর্দি-কাশি হলেই কি এন্টিবায়োটিক খাওয়ার প্রয়োজন আছে??

ব্যাকটেরিয়া দ্বারা কোন ইনফেকশন হলে এন্টিবায়োটিক খেতে হয়। বেশিরভাগ সর্দি-কাশির সমস্যা ব্যাকটেরিয়ার কারনে হয়না।

★বিভিন্ন ভাইরাসের কারনে এরকম হতে পারে।

★শুষ্ক আবহাওয়ার কারনে শীতকালে বাতাসে ধুলাবালির পরিমান বেশি থাকে। এছাড়া চারিদিকে প্রচুর কন্সট্রাকশনের কাজ চলে। এটা ধুলাবালির পরিমান আরো বাড়িয়ে দেয়।

★শীতের শেষভাগে ও বসন্তে গাছে ফুল ও মুকুল আসতে শুরু করে।

★ধুলাবালি, ফুলের পরাগরেণুর কারনে অনেকের এলার্জির সমস্যা হয়। এলার্জির কারনে সর্দি ও কাশি হতে পারে।

★ঠান্ডা, ধুলাবালি, পরাগরেণু– এসবের কারনে এজমার এটাক হতে পারে। আর এজমার একটা বিশেষ ধরন Cough variant Asthma তে কাশির প্রাধান্যই বেশি থাকে।

উপরের সবগুলো ক্ষেত্রে এন্টিবায়োটিক এর কোন ভূমিকা নেই। এরপরো ইনফেকশনের সন্দেহ করলে Sputum বা কফ কালচার করে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এন্টিবায়োটিক শুরু করা উচিত।

১।মাস্ক ব্যবহার করুন স্ট্রীক্টলী।

২।গরম পানি স্টিম নেন।

৩।সবসমই হালকা গরম পানি খান।

৪।এলার্জির কারণে হলে ডাক্তার এর পরামর্শে এন্টিহিস্টামিন যেমন:loratadin / fexofenadin খেতে পারেন।

৫।নাক সালাইন ওয়াটার দিয়ে পরিষ্কার করুন,আমাদের দেশে norsol নাম এ পাওয়া যায় সেটা দিয়ে পরিষ্কার করুন এবং congestione থাকলে xylometazole / oxymetazol use করে fluticason nasal স্প্রে আমার খুব কাজে দেয়।

৬।ভিটামিন c যুক্ত খাবার যেমন লেবু ভাতের পাশাপাশি এক টুকরো রাখুন খাবার জন্য।

৭।ফ্লু ভ্যাকসিন নিতে পারেন ডাক্তার এর পরামর্শে, ভালো ট্রান্সপ্লান্ট ইউনিট গুলো ইয়ারলি একবার ফ্লু ভ্যাকসিন সাজেস্ট করে।

পোস্টার কার্টেসিঃ WHO

Caution:
BKPA is a voluntary social organization whose mission is to raise awareness, promote and share knowledge about kidney disease. BKPA does not provide any kind of medical advice directly or indirectly through social media or any other platform which should only be done by the nephrologist or registered doctor. This is prohibited to take any kind of medical treatment based on the information provided by BKPA.
সতর্কতাঃ
বিকেপিএ একটি স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন যার লক্ষ্য কিডনি রোগ সম্পর্কে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি,প্রচার এবং সতর্ক করা। বিকেপিএতে সামাজিক মাধ্যম অথবা অন্য কোন মাধ্যম ব্যবহার করে বা সরাসরি প্রত্যক্ষ / পরোক্ষভাবে কোনো প্রকার চিকিৎসা সংক্রান্ত সেবা বা পরামর্শ প্রদান করা হয় না যা শুধুমাত্র আপনার নেফ্রোলজিস্ট এবং রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের এখতিয়ার।বিকেপিএ প্রদত্ত তথ্যের উপর ভিত্তি করে কোন প্রকার চিকিৎসা গ্রহণ নিষিদ্ধ।